শেখ হাসিনার জন্য গ্রামের অসহায় মানুষ এখন স্বস্তিতে: হানিফ

প্রকাশ: ১ বছর আগে

মোঃ জিয়াউর রহমান,কুষ্টিয়া জেলা প্রতিনিধি 

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্যোগের ফলে গ্রামের অসহায় মানুষ এখন স্বস্তিতে আছে উল্লেখ করে আওয়ামী লীগে বড়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ এমপি বলেছেন, শেখ হাসিনা বয়স্ক ভাতা চালু করেছেন। দুঃস্থ ভাতা, বিধবা ভাতা, মাতৃত্বকালীন ভাতা দিচ্ছেন। গ্রামের হতদরিদ্র মানুষ সামাজিকভাবে যাতে নিরাপদ থাকতে পারে তিনি সে ব্যবস্থা করেছেন। যার কারণে গ্রামের অসহায় মানুষ আজ স্বস্তিতে আছে।

১০ জুলাই, সোমবার দুপুরে কুষ্টিয়া সদর উপজেলার হরিপুরে গড়াই নদী ভাঙ্গন এলাকা পরিদর্শন ও ২০২২-২৩ অর্থ বৎসরে ১২ কোটি টাকা ব্যয়ে নদীর তীর সংরক্ষণ কাজের শুভ উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

 

মাহবুবউল আলম হানিফ বলেন, কয়েক বছর আগেও গ্রামের মানুষ অসহায় ছিল। গ্রামের অসহায় এসব মানুষকে সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচির আওতায় নিয়ে এসেছেন প্রধানমন্ত্রী। এসব ভাতার কথা জননেত্রী শেখ হাসিনা ছাড়া কেউ ভাবেনি।

আওয়ামী লীগের এই সিনিয়র নেতা বলেন, দেশের নদীকে বাঁচিয়ে রাখার জন্য ক্ষমতায় আসার পর থেকে কাজ করে যাচ্ছেন বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা। তিনি যতদিন রাষ্ট্র ক্ষমতায় আছেন, প্রধানমন্ত্রী থাকবেন ততদিন প্রাকৃতিক দুযোর্গ থেকে মানুষকে রক্ষা পাওয়ার জন্য সহযোগিতা করে যাবেন।

 

এসময় কুষ্টিয়া জেলার মানুষকে তার উপর ভরসা রাখার আহবান জানিয়ে হানিফ বলেন, ভরসা রাখতে পারেন আপনাদের বিপদে-আপদে আমাকে পাবেন। কুষ্টিয়া জেলার মানুষের যেকোনো সমস্যায় খোঁজ করলেই আমাকে পাবেন। আমি আপনাদের পাশে থেকে এলাকার উন্নয়ন করে আপনাদের ভাগ্য পরিবর্তনের চেষ্টা করে যাবো। আমার চাওয়া পাওয়ার কিছু নেই।

পরে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, বাংলাদেশে আমাদের কুটনৈতিক বিদেশী মেহমানরা আসছেন। এইসব বিদেশী কুটনৈতিক মেহমানদের কাছে নিজেদের শো-ডাউনের মাধ্যমে শক্তি ও সাংগঠনিক অবস্থা জাহির করার জন্য তারা ১২ তারিখে একটা কর্মসূচি দিয়ে স্টান্ডবাজি করছেন।

 

‘আাগামী ১২ জুলাই ঢাকায় বিএনপির তারণ্যের সমাবেশ থেকে সরকার পতনের একদফা আন্দোলন কর্মসূচির ঘোষণা দেয়া হবে’ বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের এমন বক্তব্য প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বলেন, বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ২০১৩ সালে যখন সরকার পতনের এক দফা আন্দোলনের কর্মসূচি দিয়েছিল তারপর থেকে সেই এক দফা কর্মসূচিই আছে। তাহলে তখন ওইটা কি কর্মসূচি ছিল। এই এক দফার কর্মসূচি তো আমরা বহু দেখেছি।

হানিফ বলেন, বিএনপির মূল ভরসার জায়গা হচ্ছে বিদেশী ষড়যন্ত্র। কারণ বিএনপির দেশের জনগণের সাথে কোন সম্পর্ক নাই, দেশের জনগণও তাদের পক্ষে নাই। দেশের জনগণ যদি পক্ষে না থাকে তাহলে কোন আন্দোলনও সফল হয় না। এই কথা আমরা বহুবার বলেছি এটা বিএনপিও জানে। আর জানে বলেই তাদের এখন মূল ভরসার জায়গা বিদেশী ষড়যন্ত্র।

 

তিনি আরো বলেন, এদেশে মাটি মানুষের দল হচ্ছে আওয়ামী লীগ। আওয়ামী লীগের শেকড় বাংলার মাটির অনেক গভীরে। আন্দোলন করে আওয়ামী লীগ সরকারকে পতন ঘটানোর ক্ষমতা বিএনপির নাই। বিএনপি নেতারা মুখে এক কথা বলছেন আর ভিতরে ভিতরে নির্বাচনের প্রস্ততি নিচ্ছেন। বিএনপি আসলে সরকার পতনের আন্দোলনের কথা বলে তাদের জনবিছিন্ন কর্মীদের মনোবল ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করছে। বিএনপির লক্ষ্য নির্বাচনে যাওয়া।

হানিফ বলেন, বিএনপির স্বভাব হচ্ছে সবসময় দ্বি-চারিতা টাইপের। ওরা মুখে এক কথা বলে আর কাজ করে তার উল্টো।বিএনপির ঠকবাজী এসব কর্মকান্ড দেশের জনগণ জানে। অতএব এবার দেশের জনগণকে কোন কিছু করেই বিভ্রান্ত করা যাবে না।

 

আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন সংবিধান অনুযায়ী এই সরকারের অধীনেই হবে জানিয়ে তিনি বলেন, আমার বিশ্বাস সংবিধান অনুযায়ী বর্তমান সরকারে অধীনে যে নির্বাচন হবে সেই নির্বাচনে তারা (বিএনপি) অংশগ্রহন করবে। আর যদি বিএনপি সেই নির্বাচনে অংশগ্রহন না করে তাহলে তারা অস্তিত্ব সংকটে পড়বে।

এসময় তিনি কুষ্টিয়া জেলার নদী ভাঙ্গন প্রসঙ্গে বলেন, পদ্মা ও গড়াই নদীর ভাঙ্গন প্রতিরোধে স্থায়ী প্রকল্প গ্রহণ করা হচ্ছে।

এসময় কুষ্টিয়া-৪ আসনের সংসদ সদস্য ব্যারিষ্টার সেলিম আলতাফ জর্জ, মিরপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কামারুল আরেফিনসহ দলীয় নেতাকর্মী ও পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।