ফরিদপুর পৌর গোল্ডকাপ ফুটবল ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত।

প্রকাশ: ১ বছর আগে

৩১ ডিসেম্বর ২০২২ ইং রোজ শনিবার বিকাল ৩ ঘটিকার সময়ে জেলা ক্রীড়া সংস্থার আয়োজনে ফরিদপুর শেখ জামাল স্টেডিয়ামে ফরিদপুর পৌর গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্ণামেন্টের ফাইনাল খেলা ও পুরস্কার বিতরনী অনুষ্ঠিত সম্পূর্ণ হয়েছে। ফাইনাল খেলায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জনাব মোঃ কামরুল আহসান তালুকদার, পিএএ, জেলা প্রশাসক, ফরিদপুর। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জনাব শাজাহান, পিপিএম, সেবা পুলিশ সুপার, ফরিদপুর। এছাড়াও হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জননেতা জনাব শামীম হক, সভাপতি, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ ফরিদপুর জেলা শাখা ও সভাপতি, ডিএফএ, ফরিদপুর। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন জনাব শাহ মোঃ ইশতিয়াক আরিফ, সাধারণ সম্পাদক, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ ফরিদপুর জেলা শাখা। উপস্থিত ছিলেন শ্রমিক জননেতা জনাব গোলাম মো নাছির, আহ্বায়ক, ফরিদপুর জেলা শ্রমিকলীগ।এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন সহ সকল কাউন্সিলর ও অন্যান্ন নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। ফাইনাল খেলায় সভাপতিত্ব করেন জনাব অমিতাভ বোস, মেয়র, ফরিদপুর পৈারসভা। খেলার আহবায়ক ছিলেন জনাব ইদ্রীস খান , কাউন্সিলর, ১৫নং ওয়ার্ড। সম্পূর্ণ  খেলা ৯০ মিনিটের মধ্যে ১ম অধ্যের ৪৪ মিনিট এর সময়ে ১১ নং ওয়ার্ডের অধিনায়ক প্রশান্ত প্রধম গোল করে এগিয়ে যায় এবং খেলার ২য় অধ্যের ৬৫ মিনিট এর সময়ে বিদেশি নাইজেরিয়া খেলোয়ার সোলেমান ২য় গোল করে ব্যবধান বাড়িয়ে দেয়। খেলায় মোকাবেলা করছে ১০নং ওয়ার্ড বনাম ১১ নং ওয়ার্ড। খেলায় ২-০ গোলের ব্যবধানে জয়লাভ করে চ্যাম্পিয়ন হয় ১১ নং ওয়ার্ড। তবে সবার নজর ছিল ৪ বিদেশি খেলোয়াড়দের দিকে। এরা হচ্ছেন শোলে মুসা, মুনজি, এরিক ও আইকে। এদের মধ্যে সোলে মুসা ও মুনজি ১১ নং ওয়ার্ড দলের পক্ষে খেলেছে এবং এরিক ও আইকে খেলেছে ১০ নং ওয়ার্ড দলের পক্ষে। খেলায় ম্যান অব দ্যা ম্যাচ হয়েছে ফরিদপুর ফুটবল একাডেমির সিনিয়র খেলোয়াড় প্রশান্ত জমার্দার। টুর্নামেন্টে সর্বোচ্চ গোল করে সেরা গোলদাতা  নির্বাচিত হয়েছে ১নং ওর্য়াডের অধিনায়ক, ফরিদপুর ফুটবল একাডেমির সিনিয়র খেলোয়াড় মোঃপালন হোসেন। টুর্নামেন্টের সেরা খেলোয়াড় হিসেবে নির্বাচিত হয় ফরিদপুর ফুটবল একাডেমির খেলোয়াড়, ২০নং ওর্য়াডের গোলকিপার মোঃসাজিদুলবারী সানজু। ফাইনাল খেলায় রানারআপ দলের জন্য পুরস্কার হিসেবে ছিল সকল খেলোয়াড়ের জন্য মেডেল, একটি ট্রফি এবং পচাত্তর হাজার টাকার একটি চেক। এছাড়া চ্যাম্পিয়ন দলের জন্য ছিল সকল খলোয়াড়দের জন্য মেডেল, একটি ট্রফি এবং এক লক্ষ টাকার একটি চেক। সম্পূর্ণ খেলাটি পরিচালনা করেন ম্যাচ রেফারি সাইফ দোহা দর্শন এবং তার সহকারি রেফারি হিসেবে ছিলেন রেজাউল করিম এবং কামরুল হাসান। এছাড়াও চতুর্থ রেফারি হিসেবে ছিলেন জনাম আবুল কাসেম ভোলা। খেলার মিডিয়া পার্টনার হিসেবে ছিল অনলাইন পোর্টাল অভিযোগ বার্তা, আজকের কন্ঠ,ফরিদপুর নিউজ এবং ফরিদপুর TV 7।