সিংজানি বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন

News Editor
প্রকাশ: ১২ মাস আগে

নিজস্ব প্রতিনিধি:
জামালপুর পৌর শহরের সিংজানি বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও সদর উপজেলা বিএনপির সভাপতি শফিউর রহমানের বিরুদ্ধে শিক্ষার্থীদের জন্য সরকার থেকে বরাদ্দ ট্যাব বিতরণে অনিয়ম, অভিভাবকদের সাথে অসদাচরণ ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে স্বৈরাচার সরকার বলার অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বুধবার সন্ধ্যা ৭ টায় জামালপুর প্রেসক্লাব মিলনায়তনে এই সংবাদ সম্মেলনে জেলা প্রশাসক বরাবর লিখিত অভিযোগে এসব বলেন শিক্ষার্থীদের অভিভাবকগণ ।

সংবাদ সম্মেলনে সিংহজানী বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয় নবম শ্রেণীর সাফায়াত হোসেন রোল ০১ ও দশম শ্রেনীর জান্নাতুল বাকীয়া রোল ০১ উভয়ের অভাবক শামীমা ইয়াসমিন গ্রাম নান্দিনা প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলনে একটি লিখিত বক্তব্য বলেন সরকার প্রদত্ত প্রদানকৃত ১ম,২য়,৩য় স্থান অধিকারীদোর ট্যাব বিতরণ করা হয়, সরকার এ ঘোষণা দেওয়ার পর থেকে আমি বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের সাথে যোগাযোগ করে আসছি, কিন্তু আমার ছেলে মেয়েকে ট্যাব প্রাপ্তি থেকে বঞ্চিত করা হয়েছে, বিদ্যালয়টির প্রধান শিক্ষক শফিউর রহমানের সাথে গত ২৫ মে ও ২৭ মে পরপর দুইবার যোগাযোগ করার চেষ্টা করলেও তিনি ৩১ মে যোগাযোগ করতে বলেন,এবং ৩১ মে যোগাযোগ করলে প্রধান শিক্ষক বলেন আপনার ছেলে মেয়ের জন্য বরাদ্দারিত ট্যাব আমি অন্য জনকে বিতরণ করে দিয়েছি।জোর খাটিয়ে তাদের কাছ থেকে সংগ্রহ করেন।আপনি অপারগতা প্রকাশ করলে বলেন, স্বৈরাচার সরকারের ভিক্ষা নিতে এসেছেন পারবেন না কেন।আমি এই বিষয়ে প্রতিবাদ করলে তিনি অশ্লীল আচরণ ও ভাষা প্রয়োগ করে আমাকে মারতে পর্যন্ত আসেন। এবং তার বিএনপি দলের লোকজনের প্রভাব দেখিয়ে আমার ছেলে মেয়েকে বিদ্যালয় থেকে ছাড়পত্র দেওয়ার হুমকি প্রদান করেন।আমি ছাড়াও একাধিক অভিভাবক তাদের সন্তানের জন্য বরাদ্দকিত ট্যাব নিতে এসে হয়রানির শিকার হন।

সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষার্থীদের অভিভাবক শামীমা ইয়াসমিন বিদ্যালয়ে পড়ালেখার সুষ্ঠ পরিবেশ ও মান বজায় রাখার স্বার্থে আনীত অভিযোগ তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার জন্য শিক্ষা মন্ত্রীসহ প্রধান মন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

তবে এ বিষয়ে প্রধান শিক্ষক মোঃশফিউর রহমান তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ মিথ্যা বানোয়াট ও ভিত্তিহীন বলে দাবী করেন। এবং বিদ্যালয়ে এই শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি কম থাকায় তাদের বরাদ্দকৃত ট্যাব ০৯ শ্রেণি শিক্ষক সেলিম রহমান বিদ্যালয়ে বেশিদিম উপস্থিতি শিক্ষার্থীদের মাঝে দিয়ে দেন ।পরবর্তীতে আমি এই বিষয়টি অবগত হলে ০১ শ্রেণী অধিকারী শিক্ষার্থীদের ট্যাব দেওয়ার আশ্বাস প্রদান করি, এবং সেই সাথে অন্য শিক্ষার্থীদের যে ট্যাবগুলো দেয়া হয়েছে তা জমা নিয়ে ০১ থেকে ০৩ স্থান অধিকারী শিক্ষার্থীদের দেওয়া হবে বলে আশ্বাস প্রদান করি।