ইকবাল আহাম্মদ লিটন মানিকগন্জ সিংগাইর ২ আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী।

News Editor
প্রকাশ: ১২ মাস আগে

অভিযোগ বার্তা নিউজ ডেস্ক:

মানিকগঞ্জ২(মানিকগন্জ-সিংগাইর) আসনে আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী সাবেক ঢাকা কলেজ ছাএলীগ নেতা ও আয়ারল্যান্ড আওয়ামী লীগের সদস্য সচিব ইকবাল আহাম্মদ লিটন সিংগাইের বিভিন্ন ইউনিয়নে বিগত করোনার পর থেকে লোকজন কে সাহায্য সহযোগিতা চালিয়ে যাচ্ছেন।

তিনি বাংলাদেশ ছাএলীগের সাবেক তোখড় নেতা ছিলেন ১৯৮৬ সাল থেকে স্বৈরচার এরশাদের শাসন আমল থেকে স্বৈরচার বিরোধী রাজনীতি করে আসছেন। তিনি সিংগাইর উপজেলার জার্মিতা ইউনিয়নের রামচন্দ্র গ্রাম (ধাইরা পাড়া) এক বনেদী খাঁন মুসলিম পরিবারে জন্ম গ্রহন করেন তার পিতার নাম মরহুম৷ মোহাম্মদ আক্রম আলী খাঁন,মাতার নাম মরহুম মোসাম্মদ হাজেরা বেগম ,এর ছোট বেলা থেকেই ইকবাল আহাম্মদ লিটন আওয়ামী ঘরনার মানুষ বিগত কয়েক বছর ধরে তিনি মানিকগঞ্জ ও সিংগাইর এলাকার গরীব অসহায় এতিম বাচ্চাদের জন্য বিভিন্ন জনহিতকর কার্যে নিজের থেকে অনেক অর্থ খরচ করছেন সেই সাথে ১৫ ই আগষ্টের জাতীয় শোক দিবসে সুদুর আয়ারল্যান্ড থেকে মানিকগঞ্জের বিভিন্ন এতিমখানায় দোয়া ও ইফতার মাহফিলের আয়োজন করে থাকেন তিনি সত্যি একজন মানবিক জনদরদী নেতা। ইকবাল আহাম্মদ লিটন তিনি ছিলেন সাধারণত মানুষের কাছে একজন সাদা মনের মানুষ হিসেবে পরিচিত। তার জনপ্রিয়তা,তার জন্য সাধারণ মানুষের মনে এতো ভালোবাসা আর এই ভালোবাসাই প্রমান করে তিনি একজন নিস্কণ্ঠক সংগঠনক। তিনি নিজের জন্য কিছুই করেন নাই।

 

এ বিষয়ে তিনি আরও বলেন সেই ১৯৮৬ সাল থেকে ১৯৯৬ সাল অবধি সুদূর আয়ারল্যান্ডের মাটিতে পড়ে ছিলাম দেশে আসতে পারি নাই বাবা মা আত্বীয় স্বজন মারা গেছে তাদের কে শেষ দেখা টুকুও দেখতে পারি নাই শুধু মাএ রাজনৈতিক কারনে,

কারন দল তখন বিরোধী দলে ছিলো আমার আর নতুন করে কোন কিছু পাওয়ার নেই।

বিদেশের মাটিতে আয়ারল্যান্ড থেকে দেশের জন্য তার দেশ প্রেম,দলের জন্য সততা নিষ্ঠার সাথে অবিরাম তার লেখার মাধ্যমে কাজ করে যাচ্ছেন।

 

মাননীয় প্রধান মন্ত্রী যদি আমাকে যোগ্য মনে করে তাহলে নির্বাচনে নমিনেশন দেয় করবো না,যাকে যোগ্য মনে করেন তার পক্ষে নৌকায় ভোট চাইবো। তিনি বলেন দীর্ঘ সময় রাজনীতির মাঠ দাপিয়ে বেড়িয়েছি,মামলা হামলার শিকার হয়েছি বিনিময়ে দলের নিকট কিছুই চাইনি,তাই আমি সিদ্ধান্ত নিয়েছি সরকারের উন্নয়নের ধারাবাহিকতায় নিজেকে সম্পৃক্ত পূরণে যারা দীর্ঘ সময় পাশে থেকে তার রাজনৈতিক পথচলা সুদৃঢ় করেছে তাদেরকে সাথে নিয়ে আগামীতে যে কোন কাজে সরকারের উন্নয়নে পাশে থাকবো।তিনি আরও আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেন,দল যদি তাকে মনোনয়ন দেয় তাহলে বিপুল ভোটে জয়লাভ করবো সরকারের উন্নয়ন কে আরও বেগবান ও বাংলাদেশ কে ২০২৯ সালের ভিতরে মধ্যম আয়ের দেশে পরিনতি করতে আগামী নির্বাচনে মানিকগন্জ জেলার ভোটার কে নৌকা প্রতীকে ভোট দেওয়ার জন্য সকলকে উদাত্ত আহ্বান জানান।