পুঠিয়ায় পুকুর থেকে ১২ লক্ষ টাকার মাছ লুট, থানায় মামলা 

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশ: ৩ সপ্তাহ আগে

রাজশাহীর পুঠিয়ায় পুকুর থেকে ১২ লক্ষ টাকার মাছ লুটের ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। জিউপাড়ার মাহাবুর আলম নামের এক ব্যক্তি বাদি হয়ে এই মামলাটি করেছে। মামলায় কানাইপাড়ার নাজমুল ইসলাম সুমন সহ ১৯ জনকে আসামি করা হয়েছে।

মামলা সূত্রে প্রকাশ, ১ জানুয়ারি আসামি সুমন কয়েকজন সঙ্গী নিয়ে মাহাবুর আলমের উজালপুরে লিজ নেওয়া পুকুরে গিয়ে তার কাছে ৫ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। টাকা না দিলে তাকে প্রান নাশের হুমকি দেয়। পরে ০৩ এপ্রিল সুমন ও তার সঙ্গীরা পুনরায় একই পরিমান চাঁদা দাবি করে। মাহবুর আলম চাঁদার টাকা পরিশোধ না করলে তাকে মারধর করে পুকুরের কাছে থেকে তাড়িয়ে দেওয়া হয়। ওইদিনই পুকুর জেলে নামিয়ে ১২ লক্ষ টাকার ১০০ মণ মাছ উঠিয়ে নেয়। একই সাথে পুকুরের পাড় থেকে ১ লাখ টাকার ২০০ কাদি কলাও কেটে নিয়ে যায় তারা। এসময় সুমন ও তার লোকজনের হাতে ধারালো অস্ত্র ও লাঠি ছিল।

মামলার বাদি মাহাবুর আলম জানান, সুমন একজন দুর্ধর্ষ প্রকৃতির সন্ত্রাসী। ঘটনার দিন থানায় ফোন দিয়েও সহযোগিতা পাইনি। পরে আদালতের দ্বারস্থ হলে আদালতের নির্দেশে গত ২৫ এপ্রিল মামলা রেকর্ড করে পুঠিয়া থানা। মামলাটি পিবিআই তদন্ত করছে।

মামলার প্রধান আসামি নাজমুল ইসলাম সুমন বলেন, ওই পুকুর তিনি এবং আরেকজন লিজ নিয়েছেন। তাই মাছ মেরেছেন। মাহাবুর আলমের দাবি পুরোটাই মিথ্যা।

পুঠিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সাইদুর রহমান জানান, এ সংক্রান্ত একটি মামলা হয়েছে। মামলাটি পিবিআই তদন্ত করছে।