৬টি পরকীয়া ৩টি বিয়ে; যৌতুকের মামলা! ফুলপুর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে

প্রকাশ: ১২ মাস আগে

মোঃ তসলিম সরকার

ময়মনসিংহের ফুলপুর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আনিছুর রহমান ৬টি পরকীয়া করে তিনটি বিয়ে করেছেন, অবশেষে ২য় স্ত্রী নিলুফার ইয়াছমিন যৌতুকের নির্যাতনের শিকার হয়ে নারী শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল আদালতে আনিছের বিরুদ্ধে যৌতুকের মামলা করেছেন। জানা যায়, নিলুফার ইয়াসমিন ২০১৫ সালে আনিছুর রহমানের সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়। এর আগে প্রথম স্ত্রী ঝুমুরকে ২০০৫ সালের দিকে বিবাহ করে। প্রথম স্ত্রী ঝুমুরের গর্ভে এক মেয়ে আর্থিক (১৫) ছেলে সোয়াদ (১২) রয়েছে। দ্বিতীয় স্ত্রী নিলুফার ইয়াছমিনের গর্ভে এক মেয়ে অবনী (৬) রয়েছে। এছাড়াও তৃতীয় স্ত্রী তাছলিমা আক্তারকে প্রবাসী স্বামীর ঘর করা অবস্থায় এক মেয়ে ছোঁয়া ছেলে রাজকে বডিংএ রেখে পরকীয়া করে গত তিন বছর স্ত্রীর মর্যাদা দিয়ে সংসার করছেন বলে সূত্রে জানা গেছে। ২০০১ সাল থেকে ২০২৩ সাল পর্যন্ত অগনিত নারীকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে শারিরীক সম্পর্ক স্থাপন এবং অন্তঃসত্ত্বা করে গর্ভপাত ঘটানোর একাধিক অভিযোগ করেছেন দ্বিতীয় স্ত্রী ও স্থানীয় লোকজন। যেসকল নারীদের সাথে অবাদ মেলামেশা করেছেন তাদের অনেকেই বিয়ে সাদি করে সংসার করছেন তাই নাম উল্লেখ না করে ছদ্ম নামে সত্য ঘটনা অবলম্বনে স্ত্রী ও স্থানীয়দের নিকট জানা যায় ফুলপুরে কয়ারী ইউনিয়নে ‘প’ নামের মেয়েটির সাথে ২০০১ সাল থেকে দীর্ঘদিন প্রেম ভালবাসার অভিনয় করে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন করলে মেয়েটি অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পরে তখন নাকফুল দিয়ে কিছুদিন স্ত্রী দাবি করে গর্ভপাত ঘটিয়ে মেয়েটিকে আর বিবাহ করে নাই। আত্বসম্মানের ভয়ে মেয়েটির পরিবার অন্যত্র বিয়ে দেয়। ভাইস চেয়ারম্যান আনিছের ঝিকঝাক ইটের ভাটা সংলগ্ন প্রবাসী মা-বাবার কন্যা ৮ম শ্রেনীর ছাত্রী থাকা অবস্থায় প্রেম ভালোবাসার অভিনয় করে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন করে, ঐ মেয়েটিও অন্তঃসত্ত্বা হয়। বিষয়টি সামাজিক ভাবে চাউর হলে মেয়েটির গর্ভপাত ঘটিয়ে টাকা পয়সা খরচ করে অন্যত্র বিয়ে দেয়। সমাজ কল্যাণ শিল্প গোষ্ঠী নামক সংস্কৃতি সংগঠনের এক নারীর সাথে রঙ্গলীলার ঘটনায় ফুলপুরে ব্যাপক আলোচনা রয়েছে। এছাড়াও জেসমিন, আখিঁ নামের দুইটি মেয়ে পরকীয়া প্রেমে সম্ভ্রম হারিয়ে আনিছের স্ত্রী’র অধিকার থেকে হয়েছে বঞ্চিত। এতসব ঘটনা দ্বিতীয় স্ত্রী নিলুফার ইয়াছমিন ধৈর্য সহকারে জেনে, শুনে, দেখে সংসারের হাল ধরে স্বামী আনিছুর রহমান ভাইস চেয়ারম্যান’কে শুধরে নেওয়ার অক্লান্ত চেষ্টা করে গত উপজেলা পরিষদের নির্বাচন কালে নিজের ১৫ভরি স্বর্গ অলংকার ও ৫ লাখ টাকা হাওলাত দিয়ে নির্বাচনে ব্যয় নির্বাহে সহযোগিতা করেছেন। সেই টাকা ফেরত চাইলে দাম্পত্য জীবনে ঘটে বিপত্তি। তারাকান্দা সম্ভ্রান্ত তালুকদার পরিবার চেয়ারম্যান বাড়ির কন্যা নিলুফার ইয়াছমিনের নামে ফুলপুরে ৫শতক জমি রয়েছে, সেই জমি বিক্রি করে আরও ১০লাখ টাকা যৌতুক দেওয়ার জন্য শারীরিক ও মানসিক ভাবে অত্যাচার নির্যাতন করতে থাকলে সোমবার (২৯ মে) ময়মনসিংহ নারী শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল আদালতে ১২৩/২০২৩ মামলাটি দায়ের করিলে বিজ্ঞ আদালত জেলা মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরকে তদন্ত পূর্বক প্রতিবেদন দেওয়ার নির্দেশনা দেন। এবিষয়ে ভাইস চেয়ারম্যান আনিছুর রহমানকে মুঠোফোনে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ইসলামের শরীয়তে ৪টি বিয়ের অনুমোদন রয়েছে আমি তিনটি করেছি। পরকীয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ইকটু-আট্টো হয়েই থাকে তবে নিলুফা ছাড়া অন্য কারও কোন অভিযোগ নাই।